kalchitro
Bongosoft Ltd.
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

মাটির বাড়ি: বাংলার স্থাপত্য ঐতিহ্য


কালচিত্র | কালচিত্র ডেস্ক প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১, ০৯:৪৬ পিএম মাটির বাড়ি: বাংলার স্থাপত্য ঐতিহ্য

‘মাটির বাড়ি: বাংলার স্থাপত্য ঐতিহ্য’

লেখক: ড. মো. শাহিনুর রশীদ

প্রকাশক: কলাবতী মুদ্রা, কলকাতা

প্রথম প্রকাশ: ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ

২য় ও বর্ধিত সংস্করণ: ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মুখবন্ধ: শামীম আমীনুর রহমান, প্রাক্তন প্রধান স্থপতি, বাংলাদেশ স্থাপত্য অধিদপ্তর

বইয়ে মুদ্রিত মূল্য: ৫৩০ টাকা

পৃষ্ঠা: ২৯৬

ছবি: ৩৯৪

বাংলার লোকজ স্থাপত্যের যে বিশাল ঐতিহ্য রয়েছে তা আমাদের অনেকেরই জানা নেই। মূলত এই প্রেক্ষাপটে গ্রন্থটি খুবই গুরুত্ব বহন করে। এই গ্রন্থের প্রথম অধ্যায়ে বাংলার মৃৎ-স্থাপত্য বিষয়ক গবেষণার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা, গবেষণা-পদ্ধতি, গবেষণার সীমাবদ্ধতা, পূর্ববর্তী গবেষণা বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। দ্বিতীয় অধ্যায়ে আলোচিত হয়েছে বিশ্ব-ইতিহাসের প্রেক্ষাপটসহ বাংলা অঞ্চলের মৃৎ-স্থাপত্যের ইতিহাস। তৃতীয় অধ্যায়ে সমকালীন নিদর্শন হিসাবে একটি কাছারিসহ মোট ছয়টি বাড়ির বিস্তারিত স্থাপত্যিক বিবরণ উপস্থাপিত হয়েছে। এর পাঁচটি স্থাপত্য নিদর্শনই দ্বি-তল। চতুর্থ অধ্যায়ে মৃৎ-স্থাপত্যের নির্মাণে স্থান-নির্বাচন ও প্রস্তুতি, নির্মাণ-উপকরণ, ভূমি-নকশা, আকার-আকৃতি ও কাঠামো, নির্মাণ প্রক্রিয়া, যন্ত্রপাতির বিবরণসহ ঘরামিদের জীবন-সংগ্রামও তুলে ধরা হয়েছে। পরবর্তী অধ্যায় (পঞ্চম) জুড়ে আলোচিত হয়েছে মৃৎ-স্থাপত্যের অলংকরণ বিষয়ে। অলংকরণসমূহকে কাঠামোগত, অস্থায়ী ও স্থায়ী অলংকরণ- এই তিন শ্রেণিতে বিভক্ত করে উপস্থাপন করা হয়েছে। শেষ অধ্যায়ে মৃৎ-স্থাপত্যের বৈশিষ্ট্যের উপর আলোকপাত করে উপসংহার উপস্থাপিত হয়েছে। শেষে প্রায় চারশ ছবি ও পরিভাষাও সংযোজিত হয়েছে। প্রয়োজনীয় ভুক্তির সাথে তার ইংরেজি অর্থ উল্লিখিত হওয়ায় স্থাপত্য-প্রকৌশল, স্থাপত্য-শিল্প এবং বাস্তু-সংস্কৃতির সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের জন্য ‘পরিভাষা’ অধিক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেছে। এছাড়া গ্রন্থের ছবিসমূহ সত্যিকারেই বাংলার মৃৎ-স্থাপত্যের ‘পূর্ণাঙ্গ ছবি’ হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

Side banner