kalchitro
Bongosoft Ltd.
ঢাকা বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১

বুলবুল কি আদৌ পরিশুদ্ধ হবে??


কালচিত্র | আবু তাহের প্রকাশিত: জুলাই ১৬, ২০২৩, ১১:২০ এএম বুলবুল কি আদৌ পরিশুদ্ধ হবে??

বুলবুল কি আদৌ পরিশুদ্ধ হবে??

আবু তাহের

যা-তা নয়, বীরপুঙ্গব সে, নাম তার বুলবুল। পাখি নয়, আসলেই স্প্যানিশ বুল ! স্বভাব তার- কী বলবো আর, নিত্য সে করে হালুম হুলুম। পাছে কারে ধরে, কারে খায়- এই নিয়ে তটস্থ থাকে রমণীরা। উপরন্তু, এ কারণে রমণীদের ‍‍'পরে বাড়ে স্বামীদের জুলুম।

কী জানি কী ক্যারিশমা আছে বটে, বুলবুলের ছলা কলায়। না হয় ত্যাজিয়া স্বামীদের প্রেম ষাটোর্ধ রমণীরা কী হেতু যায় বুলবুলের খাস কামরায় ?

তবে দিন সবার সমান যায়না- এ সত্য বুলবুল সময়মতো বুঝেনি হায় ! দশ মামলা চুপিসারে খতম করে শেষে একাদশে এসে বুলবুলের জীবনে খোদাই হয়ে যায় এক স্মরণীয় অধ্যায়।

সংক্ষেপে, সেদিন ষোড়শী এক তরুণী, হাতে নিয়ে তলোয়ার আর লাল নীল প্লাস্টিকের ফুল, আচানক সম্মুখে এসে বলে, ভালোবাসি তোমারে, প্রিয় বুলবুল। হিতাহিত ভুলে বুলবুল ছুটে, শিং তার খাড়া। তলোয়ার যার তার ধার বুলবুলের বাড়া। অত:পর কুপোকাৎ বুলবুল।

কেউ নাই তারে উদ্ধার করে, কেউ নাই তারে আর দেখাবে কূল।

শিব্বির মনে মনে হাসে, বুলবুল তুমি খেয়েছো ধরা আজ। ইতোপূর্বে নসিহত তোমায় করেছে সদাই বাবুল সংঘরাজ। তার আশ্রমে তোমারে সে দিয়েছিলো শরণ। শর্ত ছিলো একটাই, বয়স হয়েছে তোমার, বাৎস্যায়ন এর শিষ্যত্ব ছেড়ে দেবে, ছেড়ে দেবে ধানাইপানাই।

শুনোনি বুলবুল। কেনো, সে কাহিনি থাক আজ। দেখো, তোমার এ কী হাল হলো ? তরুণীর গাড্ডায় পা হড়কালে, এখন কোমর ভেঙে ডাকছো কারে ? ওবায়েদ স্যারের কথাও শুনোনি তুমি। এতোকাল চলছিলে আড়ে ঠারে।

বুলবুল বলে, মার্জনা করো শিব্বির। তবে বাবুলের কথা ছেড়ে দাও। এ সম্ভব নয়, তাকে আমি মানবো পীর।

আরেকটি কথা রাখবে জিগার ? তোমার হাতে পায়ে ধরি, এসব কাহিনী না জানে যেনো দোলন, আবু অথবা ওবায়েদ স্যার। তোমারেই গুরু মানি, বাবুলের বদলে তুমিই হও শেক্সপীয়ার।

শেষ কথা বলি, উচিত শিক্ষা হয়েছে আমার, আর কভু নয় কুপথে গমন। কয়লা ধুয়ে পরিশুদ্ধ করেছি দেহটারে, পরিশুদ্ধ করেছি এ রমণী বিহারী মন।

Side banner